Advertisement

Friday, February 19, 2016

লিপ ইয়ারের ইতিহাস

সর্বশেষ লিপ ইয়ার বা অধিবর্ষ (Leap year) ছিল ২০১২ সাল। পরেরটা? হ্যাঁ, এ বছরই- মানে ২০১৬! সূর্যের চারদিকে পৃথিবীর ঘূর্ণনের সত্যিকার সময়ের সাথে আমাদের ক্যালেন্ডারের হিসাবের মিল বজায় রাখার জন্যেই লিপ ইয়ারের আবির্ভাব। কিন্তু লিপ ইয়ারের সময় ফেব্রুয়ারি মাসকে এক দিন বাড়িয়ে ২৯ দি বানানো হয় কেন?

পৃথিবী সূর্যের চারদিকে একবার ঘুরে আসাকে গ্রেগরিয়ান ক্যালেন্ডার অনুসারে এক বছর ধরা হয়। এই হিসাবে আমরা ৩৬৫ দিনকে এক বছর ধরি। কিন্তু সত্যিকার অর্থে পৃথিবী সূর্যকে ঘুরে আসতে সময় নেয় প্রায় ৩৬৫.২৫ দিন। এই বাড়তি .২৫ দিন চার বছরে ৪×.২৫ = ১ দিন হয়ে দাঁড়ায়। তাই চার বছর পরপর বছর হয় এক দিন লম্বা- ৩৬৫ দিন। এ কারণেই সম্ভবত একে লিপ ইয়ার বা লাফ দেওয়া বর্ষ বলা হয়। বাংলা পরিভাষা অধিবর্ষ কথাটার অর্থও কাছাকাছি- অর্থ্যাৎ যে বছরে বাড়তি কিছু আছে।
পৃথিবী সূর্যের চারদিকে ঘুরে আসতে ৩৬৫ দিনের চেয়ে বেশি সময় নেয় 

বছর গড়াবার সাথে সাথে যদি লিপ ইয়ারের এই সংশোধনী করা না হত তাহলে পঞ্জিকার বছর সৌর বছর থেকে দূরে সরতে থাকত। এক সময় তা হয়ে যেত খুব বেশি। চার বছরে পার্থক্য হত ১ দিন। ১০০ বছরে পার্থক্য হত ২৫ দিন। বোঝাই যাচ্ছে, বছর আরো বেশি হয়ে গেলে পার্থক্য ভয়াবহ রূপ লাভ করত। এক সময় দেখা যাবে উত্তর গোলার্ধের শীতকাল শুরু হচ্ছে জুন মাসে !
বর্তমান গ্রেগরিয়ান ক্যালেন্ডার হচ্ছে জুলিয়ান ক্যালেন্ডারের উন্নত রূপ। সর্বপ্রথম ৪৬ খৃস্টপূর্ব সালে জুলিয়ান ক্যালেন্ডারে অধি দিন (Leap day) যুক্ত করা হয়। আলেকজান্দ্রিয়ান জ্যোতির্বিদ সসিজেনেসের পরামর্শে জুলিয়াস সিজার কাজটি করেন। ১৫৮২ সালে পোপ গ্রেগোরি জুলিয়ান ক্যালেন্ডারের উন্নতি সাধন করেন। সহায়তা করেন জার্মান গণিতবিদ ও জ্যোতির্বিদ ক্রিস্টোফার ক্ল্যাভিয়াস।
জার্মান গণিতবিদ ও জ্যোতির্বিদ ক্রিস্টোফার ক্ল্যাভিয়াস

গ্রেগরিয়ান ক্যালেন্ডারে আরো নিয়ম করা হয়, যেসব বছরের শেষে '০০'থাকবে তাতে বাড়তি দিন যুক্ত করা হবে না। তবে '০০' যুক্ত বছরটি যদি ৪০০ দিয়ে বিভাজ্য হয় তাহলে কিন্তু সেটি আবার লিপ ইয়ার হবে। কিন্তু এই নিয়ম আবার কেন দরকার হল?
একটু খেয়াল করলে দেখবেন, উপরে আমরা বলেছি পৃথিবী সূর্যকে ঘুরে আসতে প্রায় ৩৬৫.২৫ দিন লাগে। এটাও প্রকৃত মান নয়। প্রকৃত মান হচ্ছে ৩৬৫.২৪২২ দিন বা বা ৩৬৫ দিন ৫ ঘন্টা ৪৮ মিনিট ৪৭ সেকেন্ড। ফলে হাজার বছরের ব্যাবধানে সেটাও উল্লেখযোগ্য হয়ে দাঁড়ায়। যে বছরগুলোতে লিপ ইয়ার হয়েছে বা হবে তারা হচ্ছে-
1600 1604 1608 1612 1616 1620 1624 1628 1632 1636 1640 1644 1648 1652 1656 1660 1664 1668 1672 1676 1680 1684 1688 1692 1696 1704 1708 1712 1716 1720 1724 1728 1732 1736 1740 1744 1748 1752 1756 1760 1764 1768 1772 1776 1780 1784 1788 1792 1796 1804 1808 1812 1816 1820 1824 1828 1832 1836 1840 1844 1848 1852 1856 1860 1864 1868 1872 1876 1880 1884 1888 1892 1896 1904 1908 1912 1916 1920 1924 1928 1932 1936 1940 1944 1948 1952 1956 1960 1964 1968 1972 1976 1980 1984 1988 1992 1996 2000 2004 2008 2012 2016 2020 2024 2028 2032 2036 2040 2044 2048 2052 2056 2060 2064 2068 2072 2076 2080 2084 2088 2092 2096 2104 2108 2112 2116 2120 2124 2128 2132 2136 2140 2144 2148 2152।
খেয়াল করলে দেখা যাবে ২০০০ সাল অধিবর্ষ ছিল কারণ এটি ৪০০ দিয়ে বিভাজ্য। কিন্তু এই শর্ত পূরণে অক্ষম ১৯০০ সাল অধিবর্ষ হতে পারেনি।
১৫৮২ সাল থেকে গ্রেগোরিয়ান ক্যালেন্ডার ব্যবহৃত হচ্ছে বিশ্বজুড়ে।
২০১৬ সালের লিপ ইয়ার আরেক দিক থেকে একটু বিশেষত্বের অধিকারী। এটি শুরু হয়েছে শুক্রবারে। এমনটি কিন্তু খুব বেশি ঘটে না কিন্তু। এর আগে এ রকম বছরগুলো ছিল ১৯৩২, ১৯৬০ এবং ১৯৮৮। আগামীতে এ রকম মজার অধিবর্ষ আবার পাওয়া যাবে ২০৪৪ ও ২০৭২ সালে। তার মানে ২৮ বছর পরপর এমন হয়।
বাংলায়ও কিন্তু অধিবর্ষ আছে। প্রতি চার বছর পরপর বাংলা ফাল্গুন মাসে এক দিন বেশি হয়ে ৩১ দিন হয়।

সূত্রঃ
[১] উইকিপিডিয়াঃ জুলিয়ান ও গ্রেগরিয়ান ক্যালেন্ডার
[২] Earth Sky
[৩] শুক্রবারে শুরু হওয়া লিপ ইয়ার


Advertisement 02

Unknown

লেখকের পরিচয়

মাহবুব শামীম। ২০১৬ সালের ফেব্রুয়ারি থেকে বিশ্ব ডট কমের নিয়মিত লেখক। এ সাইটে লেখকের সব লেখা এখানে।