Advertisement

Friday, June 17, 2016

ইদানিং রাতের আকাশে গ্রহরা বেশ উজ্জ্বল। খালি চোখে দৃশ্যমান পাঁচটি গ্রহের মধ্যে তিনটিই এখন খুব উজ্জ্বল। এরা হল বৃহস্পতি, মঙ্গল ও শনি। এদের মধ্যে বৃহস্পতি সবচেয়ে উজ্জ্বল। তবে আজকের রাতের আকাশে চাঁদের সাথে মঙ্গলের অবস্থানই সবচেয়ে দারুণ দৃশ্য।
চাঁদ, মঙ্গল ও শনির ছবি 

আশেপাশেই আছে শনি। এক্টমি নিচে ও উত্তরে। অন্য দিকে বৃহস্পতি আছে মাথার উপর থেকে কিছুটা পশ্চিম দিকে। রাত বাড়ার সাথে সাথে সবাই আস্তে আস্তে চলে যাবে পশ্চিমে। 
Category: articles

Monday, May 23, 2016

গত ১০ বছরের মধ্যে মঙ্গল গ্রহ এখন সেরা উজ্জ্বল। এটি এখন সন্ধ্যা নামলেই হাজির হয় পূবাকাশে। বৃহস্পতি তখন থাকে প্রায় মাথার উপরে। দুজনের উজ্জ্বলতায় টক্করও লেগেছে বেশ। অবশ্য বৃহস্পতি একটু এগিয়ে। লুব্ধক এখন সন্ধ্যার পরেই পশ্চিমে ডুবে যায়। তাই বৃহস্পতি সেদিক থেকে একজন প্রতিযোগী হারালেও মঙ্গল ময়দানের লড়াই চালিয়ে রেখেছে।
রাতের আকাশে মঙ্গল গ্রহ

মঙ্গলের সাথেই আছে আরেকটু গ্রহ শনি। শনি অবশ্য উজ্জ্বলতায় বেশ পিছিয়ে। তবে শনি সব সময় প্রায় একই রকম উজ্জ্বল থাকবে। মঙ্গল এখান সেরা উজ্জ্বল হলেও মাস্খানেক পর আবার অনুজ্জ্বল হতে থাকবে। 
Category: articles

Thursday, January 28, 2016

মঙ্গল গ্রহ যে লাল দেখায় সেটা রাতের আকাশে খালি চোখে পৃথিবী থেকেও দেখা যায়।  কিভাবে গ্রহটি তার বিখ্যাত লাল রঙটি পেল?
মঙ্গলের লাল পৃষ্ঠের ছবি
মঙ্গল গ্রহের ছবিতে দেখা লাল রঙটি এর পৃষ্ঠের লোহার মরিচা ধরার ফলাফল। মঙ্গলের পৃষ্ঠে উপস্থিত মাটি ও পাথরের বড় অংশ জুড়ে রয়েছে আয়রন (লোহা)। পাশাপাশি সামান্য পরিমাণ ক্লোরিন ও সালফারও রয়েছে। বায়ুস্রোতের প্রভাবে মাটি ও পাথর ক্ষয়ের মুখোমুখি হয়েছিল। অন্য দিকে, প্রাচীন আগ্নেয়গিরি পৃষ্ঠজুড়ে ছড়িয়ে দিয়েছিল ধূলিকণাদের।
ধুলিকণার মধ্যে থাকা আয়রন অক্সিজেনের সাথে বিক্রিয়া করে পৃষ্ঠকে লাল বানিয়ে তোলে। অন্য দিকে, মঙ্গলের আকাশও কিন্তু লাল। এর কারণ, ঝড়ের সময় ধূলিকণা পৌঁছে গিয়েছিল এর বায়ুমণ্ডলেও। মঙ্গল গ্রহের ধূলিময় পৃষ্ঠ কয়েক মিলিমিটার থেকে সর্বোচ্চ ২ মিটার পর্যন্ত পুরু। এর নিচেই রয়েছে প্রধান্ত ব্যাসাল্টের ঘনীভূত লাভা। এই ব্যাসাল্টে লোহার ঘনত্ব পৃথিবীর তুলনায় অনেক বেশি। ফলাফল- মঙ্গলের লাল বেশ।
মঙ্গল গ্রহ দেখতে লাল- নিজের চোখে দেখতে চান? আপনার জন্যেই আমাদের নিয়মিত আয়োজনঃ রাতের আকাশ। এই সেকশন থেকে গ্রহদের খোঁজখবর পড়ুন। মঙ্গল গ্রহ কখ কোথায় দেখা যায় জানা যাবে।

সূত্রঃ
১। স্পেইস আনসার
Category: articles

Sunday, November 29, 2015

আজকের ছবিঃ মঙ্গলের বালির পাহাড়
বিবরণঃ দেখতে হয়ত গাছের মত লাগছে, কিন্তু আসলে তা নয়। মঙ্গল গ্রহের উত্তর মেরু থেকে ২০০৮ সালের এপ্রিলে এই ছবিটি তুলেছে মার্স রিকনয়সেন্স অরবিটার (MRO)। উল্লেখিত তারিখে মঙ্গলের বসন্তের সূর্য কার্বন ডাই অক্সাইডের বরফ গলিয়ে বালির পাহাড়কে অবমুক্ত করে দিয়েছে।

সূত্রঃ
১। নাসা এ্যাপড
Category: articles

Friday, November 27, 2015

মঙ্গল গ্রহ এর উপগ্রহ ফোবসকে হারিয়ে ফেলতে পারে। তবে এতে ওর লাভই হবে।
উপগ্রহটি এর চারদিকে বলয়ের (ring) রূপ নিবে, অনেকটা শনির বলয়ের মত। অবশ্য এটা ঘটতে সময় লাগবে প্রায় কোটি বছর। এ সময় ফোবসের উপাদান মঙ্গলের ছিটকে পড়ে ছড়িয়ে ছিটিয়ে গিয়ে তৈরি হবে বলয়।
এর ফলে দেরিতে হলেও মঙ্গল যোগ দিবে শনি, বৃহস্পতি, ইউরেনাস ও নেপচুনের দলে। উল্লেখ্য, আমরা সাধারণত জানি, বলয় শুধু শনি গ্রহের আছে। কিন্তু বাস্তবে উপরোক্ত গ্রহদেরও বলয় আছে। সেটা অবশ্যই শনির তুলনায় কম লক্ষ্যণীয়।

সূত্রঃ
১। Earth Sky
২। Universe Today 
Category: articles